স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, আওয়ামী লীগ ষড়যন্ত্রকে ভয় করে না। ষড়যন্ত্রে জাতির পিতাকে হারিয়েছি। আর ষড়যন্ত্র করতে দেয়া হবে না। সকল ষড়যন্ত্রকে প্রতিহত করা হবে।
বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় আখাউড়া উপজেলার ৩৮টি প্রকল্পের উদ্বোধন উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক জনসভায় তিনি একথা বলেন।

আখাউড়া উপজেলা পরিষদ মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক অধ্যক্ষ মোঃ জয়নাল আবেদীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জনসভায় প্রধান অতিথিস আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক এমপি আরও বলেন, খালেদা জিয়াকে মানবিক কারণে বাসায় দেয়া হয়েছে।

তিনি কোভিড আক্রান্ত হলে চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে যান। ডাক্তার সাহেবরা কিন্তু ওনাকে (খালেদা জিয়া) ভালো করেছেন। এখনো ওনারা বলতেছে আমরা নাকি ভয় পাই। খালেদা জিয়াকে বিদেশ যেতে দেই না। যেই লোক, যেই দল (বিএনপি) দেশে থেকে অশ্ব ডিম্ব পাড়ে, সে বিদেশে গিয়ে কি করতে পারবে বলেন।

মন্ত্রী বিএনপি সভানেত্রী খালেদা জিয়ার বারবার বিদেশ যেতে চাওয়া নিয়ে প্র্রশ্ন তুলে বলেন, ‘যখন দেশে সব পরিবহন বন্ধ তখন তিনি বিদেশ যেতে চান। দেশের চিকিৎসায় যদি তিনি ভালো হন, তাহলে কেন বিদেশ যাবেন।’

তিনি বলেন, আমরা যদি বাংলাদেশে থেকে মানুষকে সুস্থ করতে পারি, তাহলে কি বিদেশ যাওয়ার দরকার আছে। বিদেশে যাওয়ার কি দরকার আছে, আপনারাই বলেন।

জনসভায় আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক আরও বলেন, লকডাউনের জন্য যারা ঘর থেকে বের হতে পারেননি, কর্মজীবী মানুষ, যারা কর্ম করতে পারে না, পেশাজীবী মানুষ, যারা পেশা করতে পারে নাই, যারা শিক্ষক ক্লাশ করতে পারে নাই, সকলের জন্য প্রণোদনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

সকলের জন্য এক লাখ ৩২ হাজার কোটি টাকার বেশি প্রণোদনা দিয়েছেন তিনি।
মন্ত্রী জনগণের উদ্দেশ্যে বলেন বলেন, ‘আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। ভোট দিয়ে আপনাদেরকে প্রমাণ করতে হবে যে আপনারা গণতন্ত্র চান। আপনাদেরকে প্রমাণ করতে হবে আপনার ভোট দিতে পারেন। ভোটের জন্য জনগণ যেভাবে চায় সেভাবে পরিবেশ করে দেয়া হবে। নির্বাচন ইনশাল্লাহ্ সুষ্ঠু হবে।

জনসভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আখাউড়া পৌরসভার মেয়র মোঃ তাকজিল খলিফা কাজল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুমানা আক্তার, মুক্তিযোদ্ধা জমসেদ শাহ্, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান পিয়ারা আক্তার পিওনা, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহাব উদ্দিন বেগ শাপলু, সাধারন সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন নয়ন প্রমুখ৷

জনসভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, মন্ত্রীর একান্ত সচিব মোঃ নূর কুতুবুল আলম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফিরোজুর রহমান, কসবা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল কায়সার ভূঁইয়া জীবন প্রমুখ।

এর আগে মন্ত্রী রেলপথে আখাউড়ায় আসেন। পরে বিকেলে কসবায় প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে বেশ কয়েকটি প্রকল্পের উদ্বোধনের কথা রয়েছে।

আখাউড়ায় ৩৮টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন

স্টাফ রিপোর্টার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া

হেফাজতের তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্থ ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলষ্টেশন দ্রুত পুনঃসংস্কার ও সকল ট্রেনের যাত্রাবিরতির দাবীতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দিয়েছে জেলা নাগরিক ফোরাম৷

জেলা নাগরিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্বা রতন কান্তি দত্ত এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, আগামী শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব চত্বরের সামনে এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। উক্ত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করবেন জেলা নাগরিক ফোরামের সভাপতি সাংবাদিক পীযূষ কান্তি আচার্য।

সেই সাথে ফোরামের পক্ষ থেকে যথাসময়ে অনুষ্ঠানে সবাইকে উপস্থিত থাকার জন্যে বিনীত অনুরোধ জানানো হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রেলষ্টেশন দ্রুত পুনঃসংস্কার ও সকল ট্রেনের যাত্রাবিরতির দাবীতে সমাবেশের ডাক


স্টাফ রিপোর্টার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রাণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে এর উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ একরামউল্লাহ, পৌরসভার মেয়র মিসেস নায়ার কবির, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকার, হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক (চলতি দায়িত্ব) ডাঃ ওয়াহীদুজ্জামান, জেলা বিএমএর সভাপতি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ডাঃ আবু সাঈদ, আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ রানা নুরুস শামস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামি, সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেন, হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্টটি চালু হওয়ায় করোনায় আক্রান্ত রোগীরা অক্সিজেন সেবা পাবেন। তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের পাশাপাশি সাধারণ রোগীরাও যাতে অক্সিজেন সেবা পায় সেদিকে নজর দেয়ার জন্য চিকিৎসদের প্রতি আহবান জানান।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক (চলতি দায়িত্ব) ডাঃ ওয়াহীদুজ্জামান বলেন, ইউনিসেফের সহায়তায় স্পেক্ট্রা ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড নামে একটি কোম্পানি হাসপাতালে ১০ হাজার লিটার অক্সিজেনের এই প্লানটি নির্মাণ করে। এর মাধ্যমে একসাথে ২৩০জন রোগীকে অক্সিজেন সেবা দেয়া যাবে। অক্সিজেন নিয়ে রোগীদের আর কোন সমস্যা হবে না।
তিনি বলেন, অক্সিজেন প্লানটি চালু হওয়ায় হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) ও সিসিইউ বেড চালু করতে সুবিধা হবে।

উল্লেখ্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট চালু না থাকায় করোনাকালে হাসপাতালে কাঙ্খিত সেবা পায়নি করোনায় আক্রান্ত রোগীরা। করোনায় আক্রান্ত কোন রোগীর শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বেশী কমে গেলে ওই রোগীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কিংবা কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হতো।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট উদ্বোধন


স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৫ দফা বাস্তবায়নের দাবি নিয়ে জেলা ছাত্রমৈত্রীর উদ্যোগে মহান শিক্ষা দিবস পালিত হয়েছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০ টায় স্থানীয় শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্ত্বর থেকে একটি মিছিল বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণে শেষ হয়।

জেলা ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি ফাহিম মুনতাসিরের সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক জুবায়ের আহমেদের পরিচালানায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির জেলার সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ খাঁন, বিজয়নগর উপজেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধুরী বাপ্পী, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মনির হোসেন, একাত্তরের ঘাতক দালাল র্নিমুল কমিটির ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সাধারণ সম্পাদক অসীম কুমার বর্দ্ধন, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, জেলা যুবমৈত্রীর সদস্য সচিব ফরহাদুল ইসলাম পারভেজ, জেলা ছাত্রমৈত্রীর সদস্য মুহুয়ী শারদ প্রমুখ।

পরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ ক্যাম্পাসের শহীদ মিনারে আলোচনাসভা ও প্রতিবাদী আবৃত্তি পরিবেশিত হয়৷ এসময় ছাত্র মৈত্রীর নেতা-কর্মীদের তৈরী করা দেয়ালিকার মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শিক্ষা দিবস পালিত


স্টাফ রিপোর্টার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আনন্দঘন পরিবেশের মধ্যদিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব শ্রীশ্রী বিশ্বকর্মা পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কেন্দ্রীয় মন্দির শ্রীশ্রী আনন্দময়ী কালীবাড়িতে সার্বজনিনভাবে সৃষ্টিশীল দেবতা ও স্বর্গের নির্মাতা বিশ্বকর্মা পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

পবিত্র মন্ত্র উচ্চারণের মধ্য দিয়ে সকালে বিশ্বকর্মা দেবের রাতুল চরণে পুষ্পাঞ্জলী অর্পন করা হয়। পরে নিজের ও পরিবারের পাশাপাশি জীব জগতের কল্যাণ কামনায় প্রার্থনা করা হয়।

পূজার পুরোহিত জীবন চক্রবর্তী জানান, ভাদ্র মাসের সংক্রান্তিতে দেবশিল্প বিশ্বকর্মার আর্শীবাদ কামনায় এই পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শ্রীশ্রী বিশ্বকর্মা পূজা অনুষ্ঠিত


স্টাফ রিপোর্টার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় এ বছর ২২টি মন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। বুুুুুুধবার আখাউড়া থানা হলরুমে পুলিশের সাথে উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের মতবিনিময় সভায় এই তথ্য জানানো হয়।

আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আখাউড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কাজী আবদুল খালেক, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারন সম্পাদক চন্দন কুমার ঘোষ, পূজা উদযাপন পরিষদের আহবায়ক দীপক কুমার ঘোষ, ধরখার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বিমল কর্মকার, শ্রী শ্রী রাধামাধব আখড়া কমিটির সাধারন সম্পাদক অলক কুমার চক্রবর্তী, পূজা উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব বিশ্বজিৎ পাল বাবু, দশভুজা মন্দির সভাপতি রতন পাল, দেবগ্রাম শিব মন্দির সভাপতি কালিপদ দাস, দাসপাড়া পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি রতি রঞ্জন দাস, পূজা উদযাপন কমিটির সদস্য সুমন সেন গুপ্ত, সুভাষ দাস, কানু লাল পাল প্রমুখ।

পূজা উদযাপন পরিষদের সদস্য সাংবাদিক জুটন বনিকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বলা হয়, গত বছর উপজেলায় ১৯টি পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এ বছরও স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদযাপন করা হবে।

মত বিনিময়কালে প্রতিটি পূজা মন্ডপের সভাপতি, সম্পাদকসহ হিন্দু ধর্মালম্বীদের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন৷

আখাউড়ার ২২টি মন্ডপে অনুষ্ঠিত হবে দুর্গাপূজা


স্টাফ রিপোর্টার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকালে থানা পুলিশের আয়োজনে থানা চত্বরে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত  হয়৷

মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ হাবিবুল্লাহ সরকার।
থানার সাব-ইন্সপেক্টর জুলুস খানের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান দেওয়ান আতিকুর রহমান আঁখি, বীর মুক্তিযোদ্ধা কার্ত্তিক দাস, উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অনাথ বন্ধু দাস, সাধারণ সম্পাদক নির্মল চৌধুরী, সাবেক সভাপতি কাজল জ্যোতি দত্ত, ডাঃ শ্রীবাস দাস, প্রাক্তন শিক্ষক রাখাল চন্দ্র দাস, কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সাধারণ সম্পাদক অরুণ জ্যোতি ভট্টাচার্য, সাংবাদিক সুজিত চক্রবর্তী, আকতার হোসেন ভুইয়া, সাবেক ইউপি সচিব শচীন্দ্র চন্দ্র দাস, ইউপি সদস্য নগেন্দ্র দাস, মহিলা ইউপি সদস্য পুতুল রানী দাস প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আ.স.ম আতিকুর রহমান, চাতলপাড় তদন্ত কেন্দ্রের আই.সি কাঞ্চন কুমার সিংহ, ইউপি চেয়ারম্যানসহ উপজেলার ১৫৩টি পূজা মন্ডপের সভাপতি-সম্পাদকগণ, গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মতবিনিময় সভায় ওসি মোঃ হাবিবুল্লাহ সরকার বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে প্রতিটি পূজা মন্ডপে সর্বোচ্চ আইন-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে।

সভায় পুলিশ ও আনসারের পাশাপাশি নিজস্ব সেচ্ছাসেবক দিয়ে নিরাপত্তা নিশ্চিত করাসহ পূজার নিরাপত্তার সার্বিক বিষয়ে প্রয়োজনীয় দিক- নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে নাসিরনগরে পুলিশের মতবিনিময় সভা


স্টাফ রিপোর্টার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হাসপাতালের দুই দালালকে আটক করে কারাদন্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে জেলা প্রশাসনের সহকারি কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আবদুল্লাহ আল বাকীর নেতৃত্বে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযানকালে হাসপাতাল চত্ত্বর থেকে দুই দালালকে আটক করা হয়। এরা হলেন পৌর এলাকার শিমরাইলকান্দি গ্রামের মৃত হেবজু মিয়ার ছেলে রাসেল বকসী (২৭) ও হালদারপাড়ার মস্তু মিয়ার ছেলে মামুন (৪৫)।

পরে আটক দু’জন নিজেদের দোষ স্বীকার করায় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের প্রত্যেককে ১ মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে।

এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আবদুল্লাহ আল বাকী বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে আসা সাধারণ রোগীদেরকে হয়রানি ও দালালী করার অপরাধে তাদেরকে আটক করা হয়। তাদের কাছে বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালের অসংখ্য ভিজিটিং কার্ড পাওয়া যায়। পরে তাদের উভয়কেই একমাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হাসপাতালের দুই দালালকে কারাদন্ড


স্টাফ রিপোর্টার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক সাথে তিন পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছেন বেদেনা আক্তার (৩২) নামে এক প্রসূতি। রোববার রাত সাড়ে ১১ টায় পৌর এলাকার পাইকপাড়ায় অবস্থিত দি বসুন্ধরা জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে তিনি তিনটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেন।

প্রসূতি বেদেনা আক্তার জেলার নাসিরনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্বপাড়ার নূর ইসলামের স্ত্রী। ওই দম্পতির আরো চারটি সন্তান রয়েছে।

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের গাইনী চিকিৎসক ও কনসালটেন্ট আইরিন হক ওই প্রসূতির সিজারিয়ান অপারেশন করান। জন্ম নেয়া তিনটি শিশুর মধ্যে দুটি শিশু ও তাদের মা সুস্থ্য আছেন৷  তবে একটি শিশুর অবস্থা তেমন ভালো নয়।

হাসপাতালের কনসালটেন্ট (এনেস্থেসিয়া) ডাঃ খোকন দেবনাথ বলেন, রোববার রাত ১০টার দিকে প্রসূতি বেদেনা আক্তারের শারীরিক অবস্থা খারাপ হলে স্বজনরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। আল্ট্রাসনোগ্রাফির মাধ্যমে তারা আগেই জানতো তার গর্ভে দুটি সন্তান রয়েছে। হাসপাতালে আনার সময় মায়ের গর্ভে শিশুগুলোর নড়াচড়া কম ছিল। প্রসূতির শরীরেও রক্তের পরিমাণ ও কম ছিলো। তাই রাত সাড়ে ১১ টার দিকে দ্রুত তাকে অস্ত্রপাচার করা হয়। অস্ত্রপাচারের মাধ্যমে তিনটি ছেলে সন্তান জন্ম গ্রহণ করেন।

তিনি আরও বলেন, জন্ম নেয়া শিশু তিনটি যথাক্রমে ১ কেজি ৬০০ গ্রাম, ১ কেজি ৫০০ গ্রাম ও ১ কেজি ৬৫০ গ্রাম ওজনের। দুটি শিশু শারিরীক অবস্থা মোটামোটি ভালো আছে। তবে একটি শিশুটির শারীরিক অবস্থা তেমন ভালো না। শিশুদের মা ভালো আছেন। তিনি বলেন, জন্ম নেয়া তিনটি শিশুর ওজন কম হওয়ায় তাদেরকে ইনকিউবেটর (নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে) রাখা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একসাথে তিন পুত্র সন্তান জন্ম দিলেন এক প্রসূতি


স্টাফ রিপোর্টার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে অভিবাসী কর্মী উন্নয়ন বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ সোমবার সকালে পরিষদ অডিটোরিয়ামে এই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়৷

“আমার ভবিষ্যৎ আমার হাতে, আমিই পারি সিদ্ধান্ত নিতে”এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ওকাপ’র আয়োজনে ও আর্ন্তজাতিক শ্রম সংস্থার সহযোগিতায় (আইএলও) সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সেবা প্রদানকারী সংস্থা ও স্টেকহোল্ডারদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ডাঃ রাফিউদ্দিন আহমেদ।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার হালিমা খাতুনের সভাপতিত্বে ও অভিবাসী কর্মী উন্নয়ন প্রোগ্রাম ওকাপে’র প্রজেক্ট ম্যানেজার তানজিলা তাবাসসুমের সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ ফজলে ইয়াজ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুবিনা আক্তার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মেহেদী হাসান শাওন।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন ওকাপে’র চেয়ারম্যান শাকিরুল ইসলাম। আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবু সাঈদ মোঃ তারেক,উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা সফিকুর ইসলাম প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সেবা প্রদানকারী সংস্থা প্রতিনিধি, সাংবাদিক, এনজিও প্রতিনিধি, উদ্যোক্তাগণ অংশগ্রহণ করেন।

নাসিরনগরে অভিবাসী কর্মী উন্নয়ন বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

ফেসবুকে আমরা..