জেলা হেফাজতের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদককে গ্রেপ্তারের দাবিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গণস্বাক্ষর কর্মসূচীর উদ্বোধন


স্টাফ রিপোর্টার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের কর্মসূচী চলাকালে গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত তান্ডবের সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন, পৌরসভা কার্যালয়, সুর সম্রাট দি আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গন, এসিল্যান্ডের কার্যালয়, সুর সম্রাট আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যালয়, পুলিশ সুপারের কার্যালয়, সিভিল সার্জনের কার্যালয়, জেলা মৎস্য অফিস, সার্কিট হাউজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব, সার্কিট হাউজ, হাইওয়ে থানা ভবন, ইউনিভার্সিটি অব ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ক্যাম্পাস, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির বাসভবন, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের বাসভবনসহ সরকারি, বেসরকারি প্রায় অর্ধশতাধিক স্থাপনায় হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগের ঘটনার নেপথ্য নায়ক হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির নায়েবে আমীর ও জেলা হেফাজতে ইসলামের সভাপতি মাওলানা সাজিদুর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক মুফতি মোবারক উল্লাহকে গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সচেতন নাগরিক সমাজ।

এরই অংশ হিসেবে আজ বেলা ১১টায় বিক্ষুদ্ধ ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসীর ব্যানারে শহরের বঙ্গবন্ধু স্কয়ারের জাতীয় বীর আবদুল কুদ্দুস মাখন পৌর মুক্ত মঞ্চ ময়দানে গণস্বাক্ষর কর্মসূচীর উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সাহিত্য একাডেমীর সভাপতি কবি ও সাংবাদিক জয়দুল হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট শফিউল আলম লিটন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল ওয়াহিদ খাঁন লাভলু, সুর স¤্রাট দি আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গনের সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল আলম, জেলা নাগরিক ফোরামের সভাপতি পীযূষ কান্তি আচার্য, নারী নেত্রী নন্দিতা গুহ, জেলা আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট লোকমান হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক প্রভাষক মনির হোসেন, অধ্যক্ষ সোপানুল ইসলাম, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক এম. সাইদুজ্জামান আরিফ প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা অবিলম্বে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তান্ডবের ঘটনার নেপথ্য নায়ক হেফাজতে ইসলামের জেলা শাখার সভাপতি মাওলানা সাজিদুর রহমান ও সাধারন সম্পাদক মাওলানা মোবারক উল্লাহকে গ্রেপ্তারের দাবি জানান। নতুবা কঠোর আন্দোলনের ঘোষনা দেন। পরে মুক্ত স্বাক্ষর খাতায় গণস্বাক্ষর করেন। পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন ইউনিয়নের এই কর্মসূচী পালন করা হবে বলে, অনুষ্ঠান থেকে ঘোষনা দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক সহিংসতা চালায় হেফাজতে ইসলামের নেতা-কর্মীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরো খবর

ফেসবুকে আমরা..